হারছরা এলাকার নিলুফা ইয়াসমিন ও ইয়াসমিন আকতার

0
221

ক্সবাজার সদরের ঝিলংজা চান্দেরপাড়া এলাকায় অবৈধ দখলে নিতে বসতবাড়ী ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। কমান্ডো স্টাইলে গুড়িয়ে দিয়েছে বাড়ীর সীমানা দেওয়াল। লুট করেছে ঘরের মূল্যবান আসবাবপত্র। সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে ঘটনাটি ঘটে। স্বশস্ত্র দখলবাজদের হুমকি ও ধাওয়ায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় বসতভিটার মালিক। জানমালের নিরাপত্তায় চেয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ভুক্তভোগীরা।
সুত্র জানায়, শহরের নতুন বাহারছরা এলাকার নিলুফা ইয়াসমিন ও ইয়াসমিন আকতার থেকে ৩ বছর আগে ৬ শতক বসতভিটার জমি ক্রয় করেন চান্দেরপড়া এলাকার ফরিদুল আলম। যথারীতি খতিয়ান ও নামজারী করেন ফরিদুল আলম। তখন থেকে ভোগ দখলেও আছেন তিনি। ওই জমিতেই স্বপরিবারে বসবাস করছেন। ইতোমধ্যে জমির দাম বেড়ে যাওয়ায় কুদৃষ্টি পড়ে জমি দখলবাজদের। ফরিদুল আলমের কেনা বসতভিটা পুনরায় ফেরত দিতে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে বিক্রেতারা। তাতে রাজি না হওয়ায় ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্তদের।
ভুক্তভোগী জসিম উদ্দিনের অভিযোগ, ইয়াসমিন আকতার, আজিম, সাদিয়া আকতারসহ ১০/১৫ জন স্বশস্ত্র লোক অতর্কিত হামলে পড়ে সীমানা দেওয়াল ও বসতঘর ভাঙচুর করতে থাকে। সাহস থাকলে আমাকে তাদের সামনে যেতে বলে। বাঁধা দিতে গেলে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয় তারা।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দখলবাজরা গিয়ে বলে- ‘আমাদের কোন কাগজপত্র দরকার নাই। আমরা যাই বলি তা-ই হবে। আমাদের ঠেকানোর কোন নেতাও নেই। ‌বসতভিটা ছেড়ে দে। অন্যথায় খবর আছে।’
এ প্রসঙ্গে ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সোলতান বলেন, এরকম একটি অভিযোগ শুনেছি। একজন লোক আমাকে ফোনে জানিয়েছে। ডমুমেন্টবিহীন কারো জমিতে অনধিকার প্রবেশ অপরাধ। কাগজপত্র পর্যালোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।