টেকনাফে ২১ হাজার ইয়াবাসহ ৩ রোহিঙ্গা আটক

0
381

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ:
৬২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৫০০ টাকা মুল্যের ২০ হাজার ৯২৫ পিস ইয়াবা বড়িসহ মিয়ানমারের নাগরিক ৩ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে বিজিবি। এসময় ইয়াবা চোরাচালানীদের বহনকারী কাঠের নৌকা, নগদ বাংলাদেশী টাকা ও মোবাইল সেট জব্দ করা হয়েছে। আটককৃতরা হলেন মিয়ানমারের মংডু আসিক্কাপাড়া -মোঃ ইউনুছ আলীর পুত্র মোঃ ফয়সাল (২০), নাপিতেরডেইল ফয়েজ আহমদের পুত্র মোহাম্মদ আলী (২০), খাইংখালী রশিদ আহমদের পুত্র মোঃ আব্দুল (২০)।এব্যাপারে ২টি মামলা হয়েছে টেকনাফ মডেল থানায়। নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ দখলে রাখার অপরাধ এবং অবৈধভাবে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়ের করতঃ ধৃত আসামীদেরকে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট, হস্তচালিত কাঠের নৌকা, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোনসহ টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
টেকনাফ-২ বিজিবির পরিচালক অধিনায়কলেঃ কর্ণেল এস এম আরিফুল ইসলাম বলেন ‘বিশ্বস্ত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় ইয়াবার একটি চালান টেকনাফ ইউপিস্থ বরইতলী (উঠনী) বরাবর নাফ নদীর কিনারা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ-২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ টেকনাফ বিওপির হাবিলদার মোঃ আশরাফুল আলমের নেতৃত্বে একটি টহলদল বরইতলী এলাকায় নাফ নদীর কিনারায় অবস্থিত কেওড়া বাগানে গমন পূর্বক ওঁৎ পেতে থাকে। ৩০ সেপ্টেম্বর সকাল ৬টায় টহলদল মায়ানমার হতে নাফ নদীর শুন্য লাইন অতিক্রম করে একটি হস্তচালিত নৌকা আসতে দেখে কিনারায় আসার জন্য অপেক্ষারত থাকে। অতঃপর উক্ত নৌকাটি বরইতলী (উঠনী) বরাবর নাফ নদীর কিনারায় আসা মাত্রই টহলদল তাদের চ্যালেঞ্জ করলে ইয়াবা পাচারকারী ৩ জন ব্যক্তি নৌকা থেকে নেমে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্ট করে। এমতাবস্থায় টহলদল অক্লান্ত পরিশ্রম করে তাদের আটক করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে আটককৃত ইয়াবা পাচারকারীদের স্বীকারুক্তি অনুযায়ী উক্ত নৌকাটি তল্লাশী করে নৌকার সাথে রশি দিয়ে বাধা অবস্থায় পানির নিচ হতে ইয়াবা ভর্তি ২টি প্যাকেট পাওয়া যায়। উক্ত প্যাকেট ২টি খুলে গণনা করে ৬২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যমানের ২০ হাজার ৯২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২০ হাজার টাকা মূল্যমানের একটি হস্তচালিত কাঠের নৌকা, বাংলাদেশী নগদ ২ হাজার টাকা এবং ১ হাজার ৫০০টাকা মূল্যমানের একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ দখলে রাখার অপরাধ এবং অবৈধভাবে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করতঃ ধৃত আসামীদেরকে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট, হস্তচালিত কাঠের নৌকা, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোনসহ টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে’।